আটটি মূল্যবান ক্রোনোগ্রাফ – ঘড়ি


0

৮. ট্যাগ হোয়্যেয়ার মোনাকো

ট্যাগ হোয়্যেয়ার মোনাকো; montredo.com

সর্বপ্রথম
ক্রোনোগ্রাফ ও স্বয়ংক্রিয়  উইন্ডিং
ব্যবস্থা সহ যে ঘড়িটি বাজারে আসে সেটি হল হোয়্যেয়ার মোনাকো। এর
ডায়াল প্রায় বর্গাকৃতির তবে একটু ভিন্ন রকমের। বলা যায়, ডায়ালের ভেতরের অংশ গোলাকার তবে বাহিরের দিক থেকে
বর্গাকার। ডায়ালের চতুর্দিক চারটি কৌণিক অবস্থা রয়েছে। 

বিশ্বের
প্রথম ক্রোনোগ্রাফ হবার গৌরব অর্জন করতে পেরেছিল এই হোয়্যেয়ার মোনাকো। 

চলচ্চিত্র লা
মেনস এ এর ব্যবহার ঘড়িটি কে এক ভিন্ন মাত্রায় নিয়ে গিয়েছিল। তাছাড়া আমরা
ব্র্যাকিং ব্যাড সিরিজে জেসে পিঙ্কম্যান ওয়াল্টার হোওয়াইটকে এ ঘড়িটি উপহার দিতে
দেখা যায়।

৭.  ইউনিভার্সাল জেনেভা ট্রাই কম্পাস

ইউনিভার্সাল জেনেভা ট্রাই কম্পাস; montredo.com

ক্রোনোগ্রাফ
ঘড়ি সমূহের উৎপাদকগন এ ঘড়ি তৈরির মালিকানা আন্দোলন গড়ে তোলেন। এই আদর্শ বিংশ
শতাব্দীর প্রথম অর্ধের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা ছিল এখনও এ ধরনের আন্দোলন লক্ষ্য করা
যায় না। তখন প্রায় সব ঘড়ি কোম্পানি সমূহ কয়েকটি সংস্থা যেমন ভেলজাক্স, ভিনাস বা এক্সেলসিও পার্কের উপর নির্ভর ছিল। ঐ এক সময়ে আধুনিক
ক্রোনোগ্রাফ তৈরি করতে ইউনিভার্সালই এগিয়ে ছিল।  প্রথম তারিখ
সহ ক্রোনোগ্রাফ তৈরি করে ইউনিভার্সাল , ঘড়িটির নাম ড্যাটো কম্পাক্স । এর পরবর্তী পর্যায়ে আমরা
আরেকটি ঘড়ি দেখি সেটি ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে তৈরি করা হয় , এই ঘড়িটির নাম অ্যারো কম্পাক্স। ট্রাই কম্পাক্সে তিন টি সুবিধা রয়েছে। এক এটি ক্রোনোগ্রাফ, দুই এটিতে ক্যালেন্ডার রয়েছে এবং তিনএটিতে মুন ফেইজ বিদ্যমান।
এই তিনটি সুবিধার জন্যেই ঘড়িটির নাম ট্রাই কম্পাক্স করা হয়েছে।

৬. ট্যাগ হোয়্যেয়ার কেরেরা

ট্যাগ হোয়্যেয়ার কেরেরা; montredo.com

১৯৬৩ সালে
ট্যাগ হোয়্যেয়ারের আত্মপ্রকাশ ঘটে। বাজারে আসার সাথে প্রথমেই ঘড়িটি সাড়া ফেলতে
পারে নি তবে কিছু সময় পার হবার পর ঘড়িটি বাজারে ব্যাপক সাড়া ফেলতে সক্ষম হয়। এটি
একটি রবাস্ট ক্রোনোগ্রাফ যা তৈরিই করা হয়েছিলো দৌড় প্রতিযোগিতায় সময় মাপার জন্যে।
যদিও ট্যাগ হোয়্যেয়ার আসার আগে এই বাজার দখল করে রেখেছিল অপর একটি নাম করা
কোম্পানি ওমেগা স্পিড মাস্টার ঘড়িটি। তারপর ওমেগার এই একতরফা ব্যবসায় ভাগ বসায়
ট্যাগ হোয়্যেয়ার তবে এদেরই পরে প্রতিযোগিতায় চলে আসে রোলেক্স ডায়টোনা ও ত্যাগ
হোয়্যেয়ার মোনাকো।

৫. ব্রেইটলিং
ক্রোনোম্যাট

নেভিটাইমারের
পূর্বপুরুষ হলো, ব্রেইটলিং ক্রোনোম্যাট সুতরাং এই ঘড়ি ছাড়া তালিকাটি অসম্পূর্ণ
থেকে যাবে। ঘড়িটি দুইটি শব্দ মিলে তৈরি। ক্রোনোগ্রাফ ও অটোম্যাটেড এই দুই
ব্যবস্থার সমন্বয়ে তৈরি। একই সাথে ঘড়িটি ক্রোনোগ্রাফ। এটিই প্রথম ঘড়ি যেটিতে
ঘূর্ণায়মান বেজেল রয়েছে। তাছাড়া রোলেক্সের ফ্লুটেড বেজেলের আগে এটি এই ধরনের ঘড়ি
বাজারে উন্মুক্ত করেছিল। তাছাড়া
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরবর্তী পর্যায়ের ঘড়ি সমূহের মধ্যে এটি অন্যতম।

কেননা তখন
এই ঘড়িতে হিসেব করা সুব্যবস্থা ছিল যা যুদ্ধ পরবর্তী উইরোপের পুনর্গঠনে ব্যবহার
হয়েছিল। বর্তমান ক্রোনোম্যাটের সাথে আগের ক্রোনোম্যাটের শুধু ব্যাগের ক্ষেত্রেই
মিল রয়েছে তাছাড়া সুবিধা সমূহ এখনো আগের অবস্থাতেই রয়েছে। আপনারা যারা ৪০ এর দশকের
পুরাতন ঘড়ি সংগ্রহে রাখতে আগ্রহী তারা এখনও এই ব্রেইটলিং ক্রোনোময়াট কিনে এই আনন্দ
বোধ করতে পারেন।

৪. জেনিথ
এল প্রিমেরো

অটোম্যাটিক
ক্রোনোগ্রাফের মধ্যে কোনটি এখন পর্যন্ত সফল এটি নিয়ে অনেক তর্ক-বিতর্কের জায়গা
আছে। অনেকের মতে ক্রোনোগ্রাফ যেটি একই সাথে স্বয়ংক্রিয় আন্দোলনের মাধ্যমে চলে সেটি
অনেকগুলো কোম্পানি যেমন, বারেন-হেমিল্টন, ব্রেইটলিং-ট্যাগ হোয়্যেয়ার ডুবইস ডেপ্রাজ
তবে অনেকেই মনে করেন জেনিথই প্রথম যা অটোম্যাটিক ও ক্রোনোগ্রাফ উভয়ই দিতে সক্ষম
হয়েছিল। সত্যিকা অর্থেই জেনিথের এল প্রিমেরো সর্ব প্রথম স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থার সাথে
ক্রোনোগ্রাফের সমন্বয় করে বাজারে ঘড়িটি ছেড়ে ছিল। সব থেকে চমৎকার বিষয় হলো ঘড়িটির
দ্রুত গতির দোলন ক্ষমতা সম্পন্ন।

Source: PrestigeTime com

এটি ঘণ্টায়
প্রায় ৩৬০০০ বার কম্পিত হবার ক্ষমতা
রাখে। বিষয়টা চমৎকার না ? ক্রোনোগ্রাফ যত বেশি দ্রুততার সাথে কম্পিত হবে তত বেশি
সময় নির্ণয়ে সঠিক হবে। সোজা কথা জেনিথের এল প্রিমেরো সঠিক সময় নির্ণয়ের দিক থেকে
অন্যসব ঘড়ি সমূহের থেকে অনেক বেশি এগিয়ে। এটি জেনিথের এখন পর্যন্ত সব থেকে সফল ঘটি
বললেও ভুল হবে না।

৩. ব্রেইটলিং
নেভিটাইমার

ব্রেইটকিং
নেভিটাইমার বিমানচালকদের জন্যে একটি আদর্শ ঘড়ি। এই ঘড়িতে অনেকগুলো সুবিধা হয়েছিল।
১৯৫৪ সালে ঘড়িটি প্রথমে বাজারে আসে এবং এই ছয় দশক পরেও এর জনপ্রিয়তা বিন্দু মাত্র
কমে নি। এ.ও.পি.এ অর্থাৎ এয়ারক্রাফট ঔনার অ্যান্ড পাইলট অ্যাসোসিয়েশনের অফিসিয়াল
ঘড়ি হিসেবে এটি মনোনীত হয়েছিল। ঘড়িতে নির্ভুল সময় নির্ণয়ের পাশাপাশি জ্বালানি
কতটুকু ক্ষয় হয়েছে, সাধারণ গাণিতিক সমস্যার সমাধান ও বিভিন্ন মুদ্রার মানের
রুপান্তর এসব কাজ করা করা যেত। যুক্তরাষ্ট্রে মধ্যাঞ্চল থেকে দক্ষিণের দিকে যাওয়া
প্রায় বিমান সমূহের পাইলট এই ঘড়িটি ব্যবহার করতেন

২.
রোলেক্স ডায়টোনা

অনেকের
পছন্দের ব্র্যান্ড রোলেক্স ডায়টোনা চলে এসেছে তালিকায়। অনেকেই হয়ত আপনাদের পছন্দের
ঘড়ি রোলেক্সকে খুঁজছিলেন এই তালিকায়। রোলেক্স ডায়টোনা তাদের জন্য দ্বিতীয় নম্বরে
অবস্থান করছে। ডায়টোনা প্রথম দিকে খুব কম বিক্রি হচ্ছিল যার কারণে তখন এটি উৎপাদনও
করা হত অনেক কম। তবে ধীরে ধীরে যত ব্র্যান্ডটি পুরানো হচ্ছিলো এর গ্রহনযোগ্যতাও
ততই বৃদ্ধি পাচ্ছিল। বিশেষ করে এর ৬২৬৩ ও ৬২৩৯ মডেলটি। তাছারাও অনেকগুলো মডেল
নিলামেও হয়েছিল। পল নিউম্যান, জিন ক্লড কিলি ও জন প্লেয়ারের ঘড়ি সমূহও নিলাম
হয়েছিল।

১. ওমেগা
স্পিড মাস্টার প্রোফেশনাল

মুন ওয়াচ বা চাঁদের ঘড়ি, ওমেগা স্পিডমাস্টার প্রোফেশনাল; montredo.com

অপেক্ষার
পালা শেষ। চলে এসেছি তালিকার শীর্ষে। আমাদের তালিকার শীর্ষে জায়গা দিতে বাধ্য
হয়েছি ওমেগাকে। এই ওমেগা স্পিড মাস্টারের নাম তালিকার শীর্ষেও উল্লেখ করা হয়েছিল। ওমেগা
স্পিডমাস্টার ১৯৫৭ সালে প্রথম বাজারে আসে তবে আর কয়েকবছর পর এর নামের সাথে
প্রোফেশনাল শব্দটি জুরে দেয়া হয়। এটি পরে বাজ অল্ড্রিন চাঁদে গিয়েছিলেন, তাই এর
আরেক নাম হল চাঁদের ঘড়ি বা ‘মুন ওয়াচ’।  

এভাবে ঘড়িটি ইতিহাসে অমর হয়ে আছে। নাসা বলেছিল কোন ঘড়ি যদি পৃথিবীর বাহিরে নাসা অনুমোদন দেয় তাহলে সেটি হবে ওমেগা স্পিড মাস্টার প্রোফেশনাল। আর নাসা কর্তৃক এই মর্যাদা ঘড়িটি আকর্ষণীয় দেখতে অথবা ক্রেতাদের সন্তুষ্টির ভিক্তিতে দেয়নি বরং পৃথিবীর বাহিরে এতো বৈরি পরিবেশেও সঠিক সময় দিতে সক্ষম হয়েছে এবং কোনো প্রকার ক্ষতি না হয়ে ফিরে এসেছে এই জন্যেই দেয়া হয়েছিল। তাই এটি আমাদের তালিকাতেও শীর্ষে।

তথ্যসূত্র- https://www.montredo.com/en-gb/8-most-iconic-chronographs-of-all-time/

ফিচার ছবি- Monochrome watches


Like it? Share with your friends!

0
Sohag Alom

0 Comments

Your email address will not be published. Required fields are marked *